Breaking News
Home / Uncategorized / মোনালিসার বিছানার ছবি ভাইরাল!

মোনালিসার বিছানার ছবি ভাইরাল!

বাংলা ওয়েব সিরিজ ‘দুপুর ঠাকুরপো’র সিজন-২ কাঁপানো অভিনেত্রী অন্তরা বিশ্বাস ওরফে মোনালিসার বিছানার ছবি ভাইরাল হয়েছে। এই ভোজপুরি অভিনেত্রীর ছবি উত্তাপ ছড়িয়ে ঝড় তুলছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।আপাতত নজর কাড়ছেন ‘নজর’ নামের এক টেলি-সিরিয়ালে। তারই ফাঁকে এই সুন্দরী ঝড় তুললেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। ‘দুপুর ঠাকুরপো’-তে শাড়ি পরে হাজির হলেও এখানে তিনি পুরোপুরি পশ্চিমা পোশাকে।জি নিউজের খবরে বলা হয়েছে, সম্প্রতি নিজের ইনস্টাগ্রাম হ্যান্ডেলে একটি ছবি শেয়ার করেন মোনালিসা। যেখানে তাঁকে পশ্চিমা পোশাকে দেখা যাচ্ছে। শুধু তাই নয়, ফটোশুটের সময় মোনালিসা যখন বিছানায় শুয়ে পোজ দেন এবং সেই ছবি প্রকাশ্যে আসে, তখন তা হু হু করে ভাইরাল হয়ে যায়।

পুরুষেরা যে ৫ বিষয় স্বীকার করতে লজ্জা পায়
ছেলেরা সবসময় কথা প্রকাশের বেলায় গম্ভীর তা আমরা সবাই জানি। তারা সহজে একজন আরেকজনকে অথবা যে কোন কথাই হোক না কেন, কারো কাছে সহজে প্রকাশ করে না। তবে খুব কাছের মানুষদের কাছে অনেকেই অনেক কিছু শেয়ার করে। তবে ছেলেদের এমন কিছু বিষয় আছে যা তারা যে কারো কাছেই প্রকাশ করতে লজ্জাবোধ করে । সেটা কাছের হোক বা দূরের। এমন অনেক বিষয় আছে, যা প্রকাশ্যে বলতে লজ্জাই পায় পুরুষ সমাজ। বন্ধুদের সঙ্গে কফির আড্ডায় হোক কিংবা আত্মীয়-স্বজনদের সামনে। কয়েকটি বিষয় গোপন রাখতেই পছন্দ করেন পুরুষরা। এমনকী কখনও কখনও নিজের কাছেও স্বীকার করতে চান না। আসুন জেনে নেই কি সেই ৫ বিষয়।

স্ত্রী বেশি উপার্জন করে তথাকথিত পুরুষতান্ত্রিক সমাজে আজও অনেক পুরুষই মহিলাদের সবদিক থেকে পিছিয়ে রাখতে চান। কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে মহিলারাও যে সব বিষয়ে পারদর্শী, এ কথা মেনে নিতে আজও যেন অনেকের বাধে। অহং বোধে কোথাও যেন জোর ধাক্কা লাগে। আর তাই গর্বের সঙ্গে অনেক পুরুষই স্বীকার করতে চান না, যে স্ত্রী তাঁর তুলনায় বেশি উপার্জন করেন। কারণ এতে গর্ব নয়, বরং হীনমন্যতাতেই ভোগেন তাঁরা। অনেক সময় বেতনের তারতম্যই দাম্পত্য সুখের কাঁটা হয়ে দাঁড়ায়। তবে সব পুরুষই এমন নন। স্ত্রী মোটা অর্থ রোজগার করলে খুশিই হন স্বামী। গর্ব করে সে কথা বলতেও ভালবাসেন সকলকে।

বাড়ির কাজ করি হতেই পারে বাড়ির কাজ করতে কোনও পুরুষের ভাল লাগে। রান্না করা কিংবা বাগান সাজানো। অথবা ঘর পরিষ্কার রাখার কাজ করতে ভালবাসেন। এতে তো লজ্জার কোনও কারণ নেই। কিন্তু অনেক পুরুষই মনে করেন এ সব কথা কর্মক্ষেত্রে বা বন্ধুদের জানালে পুরুষত্বে আঘাত লাগতে পারে। অনেকে আবার ভাবতে পারেন সংসারে স্ত্রী বা মায়ের ইশারাতে হয়তো তিনি কাজ করেন। সেই ভয়েই এসব কথা লুকিয়ে রাখেন তাঁরা।

আবেগপ্রবণ মহিলারা চোখের জল দিয়েই কোনও তর্ক জিতে নিতে পারেন। পুরুষদের আলোচনায় এ কথা অনেকবারই ওঠে। কিন্তু পুরুষদের চোখে জল? নৈব নৈব চ। পুরুষরাও যে আবেগপ্রবণ হয়ে থাকেন, এ কথা যেন মেনে নিতে পারেন না তাঁরা। কষ্ট পেলে তাঁদের চোখে জলও যে স্বাভাবিক, তা নিজের মনকেও বোঝাতে পারেন না। চোখে জল দেখে কেউ যদি দুর্বল ভাবেন, এ আশঙ্কাই মনে ঘুরপাক খায় তাঁদের। যৌন জীবন নিয়ে আলোচনা পুরুষরাই যৌন জীবন নিয়ে আলোচনা করবেন। মহিলাদের ধারণা অনেক ক্ষেত্রে এমনটাই হয়। চান তাঁর পার্টনারই যেন এ নিয়ে কথা শুরু করেন। কিন্তু এ বিষয়টি আবার না-পসন্দ অনেক পুরুষের। পার্টনার যদি এ নিয়ে প্রথমে কথা বলেন, তাহলে খুশিই হন পুরুষেরা। বরং আলোচনা আরও সরস হয়ে ওঠে। তবে পার্টনার পাছে যৌন পিপাসু ভাবে, সে চিন্তাতেই আর সে কথা জানিয়ে ওঠা হয় না।

অন্য পুরুষকে দেখা পাশ দিয়ে অন্য কোনও টল-ডার্ক-হ্যান্ডসাম পুরুষ হেঁটে গেলেন। কিন্তু যে পুরুষের পাশ দিয়ে গেলেন তাঁর ভাবখানা এমন, যে সেদিকে তাকাননি তিনি। কোনও আগ্রহই নেই দেখার। কিন্তু না, অনেক ক্ষেত্রে এমনটা বোঝাতে চাইলেও তা ওপর ওপরই। কারণ অনেক পুরুষই অন্য লোকের পোশাক, হাঁটার স্টাইল, চুলের স্টাইল, জুতো বা সানগ্লাসের ব্র্যান্ড ইত্যাদি দেখতে ভালবাসেন। সোশ্যাল মিডিয়াতেও অন্য পুরুষদের প্রোফাইল দেখেন লুকিয়ে। কিন্তু এ স্বীকারোক্তি আবার সর্বসমক্ষে করা যায় নাকি? এক্কেবারে নয়।

About admin

Check Also

আরো ১৩০০ পর্ন সাইট বন্ধ করা হবে: তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী!

ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তফা জব্বর বলেছেন, আরো ১ হাজার ৩১৪টি পর্ন সাইট বন্ধের উদ্যোগ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *