Breaking News
Home / Uncategorized / ভালোবাসা ও প্রভুভক্তির চমৎকার নজীর সৃষ্টি করলো কুকুর !

ভালোবাসা ও প্রভুভক্তির চমৎকার নজীর সৃষ্টি করলো কুকুর !

বিশ্বে আক্রমণাত্মক এবং বিপজ্জনক প্রাণি হিসেবে সর্বাধিক পরিচিত আমেরিকান বুলডগ। কিন্তু সম্প্রতি ইনস্টাগ্রামে শেয়ার করা একটি ভিডিওতে চিরায়ত এ ধারণাটি ভুল প্রমাণিত হয়েছে। ভিডিওটিতে দেখা গেছে, বেল্লা নামের একটি আমেরিকান বুলডগ তার বুকে স্টোন নামের একটি মানব শিশুকে জড়িয়ে রয়েছে।ভিডিওটিতে দেখা যায় যে, ধূসর রঙের বেল্লা সোফায় শুয়ে আছে এবং লাল ও নীল রঙের পোশাক পরা একটি শিশু তার নরম পেটের মধ্যে পরম মমতায় শুয়ে আছে। আরো আশ্চর্যের ঘটনা হচ্ছে, বেল্লা তার মুখ দিয়ে আদর করার সময় শিশুটি যাতে না পড়ে যায়, সেক্ষেত্রে দুইপাশে তার থাবা দিয়ে নিরাপত্তা বেষ্টনি তৈরি করে।

মমতাময় এই ভিডিওটি ইনস্টাগ্রামে শেয়ার করে কুকুরটির মালিক ক্যাপশন লিখেছেন : ‘বেল্লা বলেছে এটি এখন থেকে আমার শিশু’। স্টোনের বাবা এমভিপিকেনেলস ডটকম ওয়েবসাইটে এক ব্যাখ্যায় বলেন, ‘আমাদের কাজের অংশ হিসেবে তর্জন-গর্জন করা সকল কুকুর গৃহপালিত কুকুর এবং এদের পরিবারের সদস্য হিসেবে গণ্য হয় এবং প্রশস্ত জায়গায় তাদের চলাফেরা এবং খেলার ব্যবস্থা করা হয়। এরা অত্যন্ত প্রশিক্ষিত এবং সমাজবান্ধব। যদিও অনেকে এদের সম্পর্কে অন্য ধারণা পোষণ করেন।’

ভিডিও ক্লিপটি ইনস্টাগ্রামে ৩০ হাজারেরও বেশিবার দেখা হয়েছে এবং শতাধিক মানুষ এটি দেখে মন্তব্য করেছেন এবং লাইক দিয়েছেন। একজন সেখানে লিখেছেন: ‘আমি এই ভিডিও ভালোবাসি, আমি এটা দেখা বন্ধ করতে পারছি না!’ আরেকজন লিখেছেন: ‘কি মিষ্টি মৃদু মেজাজ! বেল্লা সুন্দর একজন মা হবে।’

যুক্তরাজ্যে মার্কিন রাষ্ট্রদূতের পদত্যাগ
ব্যক্তিগত ও গোপনীয় ইমেইল ফাঁসের ঘটনায় পদত্যাগ করেছেন যুক্তরাজ্যে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত কিম ড্যারখ।মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে লেখা পদত্যাগপত্রে কিম লিখেছেন, তার পক্ষে এ দায়িত্ব পালন আর সম্ভব হচ্ছে না। আমি যেভাবে দায়িত্ব পালন করতে পছন্দ করি বর্তমান অবস্থায় সেটি সম্ভব নয়।ই-মেইল ফাঁসের ঘটনার পর গত সোমবার ট্রাম্প কিমকে ‘বোকা’ বলে সম্বোধন করেন। মার্কিন প্রশাসন তার পক্ষে কোন কাজ করবে না বলেও জানিয়ে দেন।

তেরেসা মে বলেছেন, কিমের এই সিদ্ধান্তে মর্মাহত হয়েছি। তিনি একজন চমৎকার কূটনীতিক ছিলেন।উল্লেখ্য, ব্যাক্তিগত ও গোপনীয় ইমেইল ফাঁস হয়ে যাওয়ায় বেশ কিছুদিন ধরেই বির্তকের মুখোমুখি হচ্ছিলেন এই কূটনীতিক। ইমেইল ফাঁসের ঘটনাকে ‘দূর্ভাগ্যজনক’ অবিহিত করে যুক্তরাজ্য এ ঘটনার তদন্ত শুরু করলেও রাষ্ট্রদূতকে নিয়ে দুই দেশের মধ্যে টানাপোড়েন শুরু হয়।ফাঁস হওয়া স্যার কিম ডারখের এসব ইমেইলে তিনি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং তার প্রশাসনের কড়া সমালোচনা রয়েছে, যেখানে হোয়াইট হাউজকে ‘অদ্ভুত ও নিষ্ক্রিয়’ বলে বর্ণনা করা হয়েছে। ব্যাপক কূটনৈতিক ক্ষোভের মধ্যে হাউজ অব কমন্সে আহবান জানানো হয়েছে যে, পুরো ব্যাপারটির যেন পুলিশি তদন্ত হয়।

ব্যক্তিগত ও গোপনীয় ইমেইল ফাঁসের ঘটনায় পদত্যাগ করেছেন যুক্তরাজ্যে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত কিম ড্যারখ।মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে লেখা পদত্যাগপত্রে কিম লিখেছেন, তার পক্ষে এ দায়িত্ব পালন আর সম্ভব হচ্ছে না। আমি যেভাবে দায়িত্ব পালন করতে পছন্দ করি বর্তমান অবস্থায় সেটি সম্ভব নয়।ই-মেইল ফাঁসের ঘটনার পর গত সোমবার ট্রাম্প কিমকে ‘বোকা’ বলে সম্বোধন করেন। মার্কিন প্রশাসন তার পক্ষে কোন কাজ করবে না বলেও জানিয়ে দেন।

প্রথমে পুরো ঘটনাটিকে তারা খুব বেশি গুরুত্বের সাথে না নিলেও পরে আনুষ্ঠানিকভাবে তদন্ত শুরু করেছে। এই তথ্য ফাঁস হওয়া কোন ষড়যন্ত্রের অংশ অথবা ব্রেক্সিট পরিকল্পনার অংশ বলে যেসব ধারণার কথা বলা হয়েছে, সেসব নাকচ করে দিয়েছেন পররাষ্ট্র দপ্তরের প্রতিমন্ত্রী স্যার অ্যালান ডানকান। তিনি একে একটি ‘জঘন্য তথ্য ফাঁস’ বলে বর্ণনা করেছেন এবং ভেতর থেকেই এটি ফাঁস হয়েছে বলে বলেছেন। হোয়াইট হাউজের একটি জানায়, এই ঘটনায় শত্রুভাবাপন্ন কোন রাষ্ট্রের ভূমিকা থাকার সম্ভাবনাকে নাকচ করে দেয়া যায় না। তবে ডাউনিং স্ট্রিটের ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, এখানে বিদেশি কোনো শক্তি জড়িত থাকার প্রমাণ পাওয়া যায়নি।
বৃহস্পতিবার, জুলাই ১১, ২০১৯

About admin

Check Also

আরো ১৩০০ পর্ন সাইট বন্ধ করা হবে: তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী!

ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তফা জব্বর বলেছেন, আরো ১ হাজার ৩১৪টি পর্ন সাইট বন্ধের উদ্যোগ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *